অবশেষে ২০ ভাগ সেমিস্টার ফি মওকুফ, নাখোশ নর্থ সাউথ শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের লাগাতার বিক্ষোভের মুখে অবশেষে শরৎকালীন সেমিস্টারের ২০ ভাগ ফি মওকুফের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে এ ঘোষণায় সন্তুষ্ট হতে পারেননি আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের প্রকৃত দাবি তারা মেনে নেননি। গত রোববার থেকে শিক্ষার্থীরা ২০ শতাংশ সেমিস্টার ফি মওকুফ ও কোটা ভিত্তিক বৃত্তির দাবিতে আন্দোলন করে আসছিল।

আন্দোলনের অংশ হিসেবে মঙ্গলবার সকাল থেকেই নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় অবরুদ্ধ করে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন শিক্ষার্থীরা। এর আগে উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে বিশবিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সোমবার জরুরি বৈঠকে বসেন উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম। বৈঠকের একদিন পরেই ২০ শতাংশ ফি মুওকুফের ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে শিক্ষার্থীরা বলছেন, তাদের আন্দোলন শুধু সেমিস্টার ফি মওকুফের জন্য নয়। বরং অ্যাক্টিভিটি ফি পুরোপুরি বাতিলের আন্দোলন। যেমন- কম্পিউটার ল্যাব ফি, গ্রন্থাগার ফি ও অন্যান্য ফি।

শিক্ষার্থীরা জানান, করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ। কোনো ক্লাস-পরীক্ষা নেই। তাহলে কেনো আমাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অ্যাক্টিভিটি ফি নেয়া হবে?

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রতিনিধি মঙ্গলবার বিকালে ফি কমানোর ঘোষণা দিয়েছেন। শিক্ষার্থীরা ৩০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফ ও অ্যাক্টিভিটি ফি বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে চাতুরতা শুরু করেছে।

দুরন্ত/২০অক্টোবর/আইডি