ইচ্ছাকৃত ভাবে কাশি দিলে লাল কার্ড!

দুরন্ত ডেস্ক:

করোনায় মাঠের ফুটবল নিয়ম হচ্ছে কঠোর। আগে খেলা চলাকালে কাউকে উদ্দেশ্য করে থুথু মারলে কিংবা ইচ্ছাকৃত কাশি দিলে দেখতে হবে লাল কার্ড।

আন্তর্জাতিক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ড (আইএফএবি) জানিয়েছে ইচ্ছে করে থুতু মারা গালিগালাজ করা বা অশোভন অঙ্গভঙ্গি করার শামিল। কাজেই এখন থেকে ইচ্ছে করে থুতু মারলে দেখতে হবে লাল কার্ড।

ইচ্ছাকৃত ভাবে কেউ বিপক্ষের কোনও ফুটবলার বা ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের (রেফারি, লাইন্সম্যান ও চতুর্থ রেফারি) মুখের সামনে গিয়ে কাশলেই কড়া শাস্তির মুখে পড়বেন। দেখতে হতে পারে লাল কার্ডও। ইংল্যান্ড ফুটবলে সব পর্যায়েই এই নিয়ম চালু হচ্ছে।

ফুটবল মাঠে মরণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ইতিমধ্যেই কড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হচ্ছে। যে ১৯টি বিষয়ের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে স্টেডিয়ামে দর্শকদের প্রবেশ নিষেধ। এ ছাড়া খেলা শুরুর আগে ও পরে পরস্পরের সঙ্গে হাত মেলানো যাবে না। উৎসবের সময়ে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। ইংল্যান্ড ফুটবলে এ বার জারি হচ্ছে কাশির উপরেও নিষেধাজ্ঞা।বিবিসি এই নিউজ করেছে।

ইংল্যান্ড এফএ স্পষ্টভাবে তাদের শর্তের কথা জানিয়ে দিয়েছে-‘কেউ যদি ইচ্ছাকৃত ভাবে প্রতিপক্ষের কোনও ফুটবলার অথবা ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে যাঁরা রয়েছেন, তাঁদের মুখের সামনে গিয়ে কাশি দেন, তা অপরাধ হিসেবে গন্য করা হবে।’

আক্রমণাত্মক মেজাজ, অপমানজনক মন্তব্য বা আচরণ করার মতো অখেলোয়াড় সুলভ মনোভাব হিসেবেই চিহ্নিত করা হবে অন্যের মুখের সামনে গিয়ে ইচ্ছাকৃত ভাবে কাশি দিলে।

এক বিবৃতিতে তারা বলেছে-যদি দেখা যায়, মাঠ থেকে বার করে দেওয়ার মতো যথেষ্ট প্রমাণ নেই, সে ক্ষেত্রে অখেলোয়াড়ি আচরণের জন্য সংশ্লিষ্ট ফুটবলারকে সতর্ক করা হবে। কারণ, খেলার প্রতি তিনি যথেষ্ট সম্মান দেখাননি।’

দুরন্ত/৫আগস্ট/পিডি