ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য করলেই মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

দুরন্ত ডেস্ক:

জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য রুখতে একটি নির্বাহী আদেশ জারির পরিকল্পনা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর ফলে ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য করতে চাইলে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়বে যেকোনো দেশ। কয়েকটি সূত্রে বৃহস্পতিবার রয়টার্সকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এক সূত্র জানায়, কয়েকদিনের মধ্যেই এই নির্বাহী আদেশ আসতে পারে। এর ফলে যেসব দেশ অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে ইরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য করবে তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

২০১৫ সালে জাতিসংঘের মাধ্যমে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি এবং যুক্তরাষ্ট্র- এই ছয় রাষ্ট্রের পরমাণু সমঝোতা হয়। ১৮ অক্টোবর তেহরানের ওপর আনা ওই অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবে।

ট্রাম্পের ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্র দুই বছর আগে এ পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে আসলেও, দেশটি ইরানের ওপর এ নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়াতে জাতিসংঘে তৎপরতা চালায়।

চুক্তিতে সই করা অন্য দেশগুলো যুক্তরাষ্ট্রকে সমর্থন না দেওয়ায় ভিন্ন পথে হাঁটছে মার্কিন সরকার।

বিশ্লেষকদের মতে, জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও যাতে কোনো দেশ তেহরানের সঙ্গে অস্ত্র বাণিজ্য না করতে পারে, সে কারণেই এই নির্বাহী আদেশ জারি করতে যাচ্ছেন ট্রাম্প।