‘ক্রিকেটে ফিরতে ফিটনেস টেস্টে পাশ করতে হবে সাকিব আল হাসানকে’

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশের জাতীয় ক্রিকেটের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানিয়েছেন, দেশের ক্রিকেটে ফেরার আগে ফিটনেস টেস্টে পাশ করতে হবে সাকিব আল হাসানকে। তাকে করতে হবে করোনা পরীক্ষাও। কোয়ারেন্টিন প্রক্রিয়া কেমন হবে সাকিবের জন্য সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবে বিসিবির মেডিকেল টিম। জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের আগে দলের সেরা তারকাকে সেরা ছন্দেই দেখতে চান নির্বাচকরা।

নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে। সাকিব এখন মুক্ত বিহঙ্গ। কোটি কোটি ভক্তের মত ২২ গজের মঞ্চটা অপেক্ষায় দেশের ক্রিকেটের রাজপুত্রের জন্য।

কর্পোরেট লিগেই খেলবেন সাকিব, বিসিবি জানিয়ে দিয়েছে আগেই। ১৫ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া এ টুর্নামেন্টের জন্য বোর্ডের কার্যক্রমও এগোচ্ছে ধীরে ধীরে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা রাখতে ৫টি দলকেই সমমানের করতে চাইছেন নীতি নির্ধারকরা। তবে একজন সাকিব যে দলে খেলবেন, মনস্তাত্ত্বিক ভাবে তো এগিয়ে থাকবেন তারাই। কিন্তু, নিজের ফিটনেস নিয়ে বেশ মনোযোগী থাকলেও ম্যাচ ফিটনেসের পরীক্ষা যে দিতে হবে তাকেও।

বিসিবি’র প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, সাকিব শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ স্থগিত হওয়ার আগে বিকেএসপিতে অনুশীলন করেছিলো। তবে, এক বছর ধরে সে ক্রিকেটের বাইরে আছে। তার ফিটনেসের অবস্থা সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না। তাই তাকে ফিটনেস টেস্টে পাশ করতে হবে। অন্যদের ক্ষেত্রেও যেমন টেস্ট হবে, সাকিবের বেলায় তার ব্যতিক্রম হবে না।

কর্পোরেট লিগের বাকি সপ্তাহ দু’য়েকের কিছু বেশি। এখনও যুক্তরাষ্ট্রে সাকিব। দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনের হিসেব ধরলে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের শুরু থেকে খেলা নিশ্চিত করতে দুই এক দিনের মধ্যেই তাকে ফিরতে হবে দেশে। সাকিবের দেশে ফেরার দিনক্ষণ আর কোয়ারেন্টিন নিয়ে প্রশ্ন ছিলো বিসিবি প্রধান নির্বাচকের কাছে।

মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, সাকিবের অবশ্যই করোনা পরীক্ষা করা হবে। তবে, কতদিন তাকে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবে বিসিবির মেডিকেল টিম।

জানুয়ারি থেকে শুরু জাতীয় দলের ব্যস্ততা। তার আগে দলের সেরা খেলোয়াড়কে সেরা ছন্দেই দেখতে চাইবেন নির্বাচকরা।