চাটমোহরের একটি গ্রামে দুইটি মেছোবাঘ আটক

চাটমোহর (পাবনা) সংবাদদাতা:

পাবনার চাটমোহর উপজেলার একটি গ্রামে দুইটি মেছোবাঘ আটক, ১টি মারা গেছে এবং ৪ জন আহত হয়েছে। উপজেলার ডিবিগ্রাম ইউনিয়নের বামনগ্রামে ২ অক্টোবরে মেছোবাঘ ভেবে গ্রামবাসী আটক করে।

এসময় মেছোবাঘের আক্রমণে গ্রামের ৪ জন আহত হয়েছেন। গ্রামবাসীর পিটুনীতে একটির মৃত্যু ঘটেছে। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন, বামনগ্রামের ইছা বিশ্বাসের ছেলে লিটন বিশ্বাস (৩০),আঃ গফুরের ছেলে এনামুল হক (৩২) ও আফসার আলীর ছেলে আনিসুর রহমান (২৮)। এছাড়া ইসমাইল হোসেনের ছেলে মহিদুলকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। গ্রামবাসী জানান, বামনগ্রাম কবরস্থানের পাশে দুইটি মেছোবাঘ একটি ছাগলকে আক্রমণ করে। এসময় আশপাশের লোকজন দেখে চিৎকার করতে থাকে।

এক পর্যায়ে গ্রামের মসজিদের মাইকে ঘোষনা দিয়ে গ্রামবাসী সমবেত হয়। লাঠিসোটা নিয়ে কবরস্থান ঘিরে তল্লাশী শুরু করেন। এক পর্যায়ে প্রাণী দুইটি প্রাণ রক্ষার্থে গ্রামবাসীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। গ্রামবাসী লাঠিসোটা নিয়ে তাদেরকে মারতে থাকে। এক সময় ফিশিংক্যাট দুইটিকে আটক করা হলেও একটির মৃত্যু ঘটে।

খবর পেয়ে পাবনা বনবিভাগের রেঞ্জ অফিসার মোঃ রনজিবুল আমিন,উপজেলা বন কর্মকর্তা মোঃ আঃ কুদ্দুস,উপজেলা ভেটেরিনারী সার্জন ডাঃ মোঃ রোকনুজ্জামান,চাটমোহর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। বনবিভাগের কর্মকর্তা, থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

উপজেলা বন কর্মকর্তা আঃ কুদ্দুস জানান, সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানায়, এ দুইটি প্রাণী আসলে ‘ফিশিং ক্যাট’ বা বনবিড়াল। মেছোবাঘ নয়। জীবিত ও মৃত দুইটি প্রাণীকেই পাবনা জেলা বনবিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা নিয়ে গেছেন। রাজশাহী বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ দপ্তরে হস্তান্তর করা হবে।