চারশ তালেবান বন্দির ভাগ্য নির্ধারণ আগামীকাল

দুরন্ত ডেস্ক:

আফগান সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনা শুরুর আগে সর্বশেষ চারশ তালেবান বন্দির মুক্তি চায় ওই বিদ্রোহীগোষ্ঠী। এ ব্যাপারে সরকার একতরফা সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরিবর্তে দেশের সব গোষ্ঠীর নেতাদের পরামর্শ শুনতে চায়। আর তাই গতকাল শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে ‘লয়া জিরগা’ শীর্ষক মহাসভা।

রাজধানী কাবুলে এক বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে গতকাল লয়া জিরগার উদ্বোধনী সভায় প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি বলেন, ‘তালেবানরা বলেছে, ওই ৪০০ বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হলে তিন দিনের মধ্যে তারা সরাসরি আলোচনা শুরু করবে। বন্দিদের মুক্তি দেওয়া না হলে তারা লড়াই তো চালিয়ে যাবেই, সেই সঙ্গে তারা লড়াই তীব্রতর করবে। কিন্তু জাতির সঙ্গে আলোচনা না করে ওই বন্দিদের মুক্তি দেওয়া সম্ভব ছিল না।’ সূত্র : এএফপি।

লয়া জিরগার আয়োজক কমিটির প্রধান মাসুম স্তানেকজাই জানিয়েছেন, সভায় দেশের বিভিন্ন গোষ্ঠীর প্রায় তিন হাজার ২০০ প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন। আগামীকাল রবিবারই তাঁরা ৪০০ তালেবান বন্দিমুক্তির বিষয়ে প্রস্তাব পাস করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

লয়া জিরগায় পাস হওয়া প্রস্তাব মানার কোনো আইনি বাধ্যবাধকতা সরকারের নেই। পূর্ববর্তী সরকার একবার লয়া জিরগার এক সুপারিশ প্রত্যাখ্যান করেছিল।

তালেবানরা অবশ্য এ সভা গতকালই প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের মতে, এ সভা আফগান জাতির প্রতিনিধিত্ব করে না।

এদিকে সভার শুরুর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ওই বন্দিদের মুক্তির বিষয়টি যে অনাকাঙ্ক্ষিত, তা আমরা জানি। কিন্তু এ কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণের মধ্য দিয়ে আফগান ও আফগানিস্তানের মিত্রদের বহু প্রতীক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ ফল অর্জনের পথে যাওয়া যাবে : সহিংসতা কমবে, (আফগান সরকার-তালেবান) সরাসরি আলোচনার মাধ্যমে শান্তিচুক্তি হবে এবং যুদ্ধের ইতি ঘটবে।’

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বাহিনীর প্রায় দুই দশকের যুদ্ধের ইতি টানতে গত ফেব্রুয়ারিতে তালেবানদের সঙ্গে চুক্তি করে মার্কিন পক্ষ। চুক্তি অনুযায়ী এরই মধ্যে আফগানিস্তানে মার্কিন সেনার সংখ্যা সর্বনিম্ন পর্যায়ে নামিয়ে আনা হয়েছে। এখন যুক্তরাষ্ট্র আফগান সরকার ও তালেবানদের সরাসরি আলোচনা শুরুর তাগিদ দিচ্ছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে চুক্তির শর্ত অনুযায়ী তালেবানরা এরই মধ্যে সরকারপক্ষের সব বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে। সরকারও প্রায় পাঁচ হাজার তালেবান বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে। কিন্তু এখনো কারাবন্দি প্রায় ৪০০ তালেবান। তাদের মুক্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে লয়া জিরগা আহ্বান করা হয়।

দুরন্ত/৮সেপ্টেম্বর/পিডি