চোখে কালো কাপড় বেঁধে ধর্ষণের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি:

সিলেট এমসি কলেজ, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ সারাদেশে ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদস্বরূপ চোখে কালো কাপড় ও হাতে স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে অংশে নেন। মানববন্ধন থেকে তারা ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের দাবিসহ ৭ দফা দাবি জানান।

৭ দফার দাবিসমূহ হলোঃ
১. ধর্ষণ আইন পুনঃবিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করা।
২. ধর্ষণজনিত ঘটনা বা অপরাধের জন্য আলাদা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল গঠন এবং ৩০-৬০ কার্যদিবসের মাঝে বিচার সম্পন্ন করার প্রক্রিয়া তৈরি করা।
৩. ধর্ষিতার বিনামূল্যে চিকিৎসা এবং পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা।
৪. জেলায় জেলায় ধর্ষণ প্রতিরোধে পুলিশের আলাদা টাস্কফোর্স গঠন করা।
৫. নির্জন রাস্তায় সচল সিসিটিভি স্থাপন।
৬. পূর্ববর্তী সকল ধর্ষণ মামলার রায় ৬ মাসের মধ্যে সম্পন্ন করা।
৭. দলীয় মদদে কোন ধর্ষণকে বা কোন অপরাধকে আশ্রয় দেওয়া হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা।

মানববন্ধন বিষয়ে আইন বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদ বলেন, ‘যে দেশের সরকার প্রধান একজন নারী, স্পিকার, বিরোধীদলীয় নেত্রীসহ ক্ষমতাসীন অনেকেই নারি, সেদেশে ধর্ষণের মত অপরাধ দৈনন্দিনের আর দশটা অপরাধের মত শস্তা হয়ে পড়েছে। সাম্প্রতি বেগমগঞ্জের ঘটনায় ৩২ দিন হয়ে গেলেও, বিচার চাওয়ার সাহস পায় নি ভুক্তভোগী।

বিচারহীনতার কোন সংস্কৃতিতে এদেশ আজ! যার কারনে একজন ধর্ষিতাও তার বিচার চাইতে পারে নি! ভাইরাল না হলে হয়ত আজ আমরাও দাড়াতাম না। এটা একটা জাতীর জন্য ভীষণ লজ্জাজনক। আমরা নেত্রীর কাছে আবেদন জানাই, ধর্ষণের একমাত্র শাস্তি হোক মৃত্যুদণ্ড।’

এসময় আরেক শিক্ষার্থী শিকদার মাহবুব বলেন, ‘এখানে মানববন্ধন করছি একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বা সমাজের দায়বদ্ধতা থেকে নয়, নিজের মা বোনদের সুরক্ষার জায়গা থেকে। মাননীয় নেতৃবৃন্দের কাছে একটাই দাবি, ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি হোক মৃত্যুদন্ডের বিধান।’