ছাতকে পাহাড়ি ঢলে বাড়ছে নদীর পানি, রোপা-আমনের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা

মোশাহিদ আলী, ছাতক প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের ছাতকে গেল ৫দিনের অবিরাম বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার নিম্নাঞ্চলে আবারও বন্যা দেখা দিয়েছে। হঠাৎ করেই নদ-নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় রোপা আমন ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে।

৪র্থ দফা বন্যায় রোপন আমন ও শাক-সবজি ক্ষেতও পানিতে তলিয়ে গেছে। উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের নিন্মাঞ্চলের প্রায় ৪০টি গ্রামে বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হওয়ায় চরম দূর্ভোগে পড়েছেন প্রায় ৫০ হাজার মানুষ।

টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে পানি বৃদ্ধি হওয়ায় সুরমা নদীর তীরবর্তী আশপাশ এলাকার অধিকাংশ ষ্টোন ক্রাশার মিল গুলো বন্ধ রয়েছে। ফলে বেকার হয়ে পড়েছেন মিলের কর্মরত শত শত দিন মজুর।

করোনা কালীন সময়ে ৩য় দফা বন্যার শেষ হতে না হতেই ৪র্থ দফা বন্যায় এবার উপজেলার রোপা আমনের ফসল নিয়ে চরম দুঃচিন্তায় পড়েছেন এখানের কৃষকরা। কৃষকরা যখন রোপা আমন ক্ষেতের চাষাবাদ নিয়ে ব্যস্থ, ঠিক এ সময়ে আকস্মিক পাহাড়ি ঢলে কৃষকরা দিশেহারা। টানা বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ফের দেখা দিয়েছে বন্যার।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে ১৩ হাজার ১১৫ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ করা হয়। আকস্মিক পাহাড়ি ঢলে বেশিরভাগ কৃষকের রোপা আমান ও রবিশস্য নষ্ট হয়ে গেছে। শনিবার দুপুর পর্যন্ত সুরমার পানি ১২০সেন্টিমিটার বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.তৌফিক হোসেন খান বলেন, সরকারী হিসেব অনুযায়ী পাহাড়ি ঢলে উপজেলার প্রায় ৫’শ হেক্টর রোপা আমন জমি পানির নীচে তলিয়ে গেছে। তবে পানি দ্রুত না কমলে এবার রোপা আমনের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।