ছাতকে হামলা ও সংঘর্ষে নারীসহ আহত ১০

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের ছাতকে প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলা ও সংঘর্ষে নারীসহ উভয় পক্ষের ১০ ব্যক্তি আহত হয়েছে। গুরুতর আহত দু’জনকে ভর্তি করা হয়েছে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। অন্যান্য আহতদের কৈতক হাসপাতালে ও স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকালে উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের ঝামক গ্রামের আবদুল খালিকের ছেলে দিলাল ও পছন্দর আলীর ছেলে তাহিদুল পক্ষদ্বয়ের মধ্যে।

জানা যায়, ভূমিহীন পরিবার হিসেবে সরকার কর্তৃক পছলন্দর আলীকে কিছু সরকারী খাস জমি দেয়া হয়। তিনি তার এ জায়গায় মৌসুমের সবজি চাষ করে আসছিলেন। এ জমি জোর পূর্বক জবর-দখলের চেষ্টা চালায় আবদুল খালিকের পক্ষ।

এ নিয়ে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে দেখা দেয় বিরোধ। সম্প্রতি লিজকৃত জমিতে সবজির চারা বপন করেন পছলন্দর আলীর ছেলে তাহিদুল। শুক্রবার সকালে আবদুল খালিকের গরু এ সবজির চারাগুলো নষ্ট করে ব্যাপক ক্ষতি করে।

এ নিয়ে প্রতিবাদ করলে দিলাল পক্ষের লিটনের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ ভাবে তাহিদুলের বাড়িতে হামলা চালায়। এক পর্যায়ে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জাউয়াবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় গন্যমান্যদের সহযোগিতায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

হামলা ও সংঘর্ষে নারীসহ উভয় পক্ষের ১০ব্যক্তি আহত হয়। গুরুতর আহত রইছ আলী (৫০) ও সিজুল মিয়া (২৮) কে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আহত কামাল (৩৫), তাহিদুল (৪০), পাবেল (২০), জেসমিন (২৫), বাতির আলী (৩০), রুস্তম আলী (২৮), সুজন মিয়া (৩০) ও সুহাগ মিয়া (৩৩)কে কৈতক

হাসপাতালসহ স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্তকর্তা (ওসি) শেখ নাজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লিখিত অভিযোগ দেয়া হলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।