ডিএসসিসি’র চিরুনি অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এডিস মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে পরিচালিত ৬ষ্ঠ দিনের চিরুনি অভিযানে মোট ৮৮টি স্থাপনা পরিদর্শন করা হয়েছে। এর মধ্যে ৮টি স্থাপনায় এডিস মশার প্রজননস্থল পাওয়ায় ৮টি মামলা ও ১ লক্ষ ২২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ডিএসসিসি’র ৩টি ভ্রাম্যমাণ আদালত রবিবার অঞ্চল-১ এ ১৫ নং ওয়ার্ডের ধানমন্ডি এলাকা, অঞ্চল-২ এ ৪ নং ওয়ার্ডের বাসাবো ও অঞ্চল-৩ এ হাজারীবাগ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে। অঞ্চল-১ এ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাজী ফয়সাল, অঞ্চল-২ এ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নাজমুল আহসান ও অঞ্চল-৩ এ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিতান কুমার মন্ডল ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

অঞ্চল-১ এ ভ্রাম্যমাণ আদালত ৩৭টি স্থাপনা পরিদর্শন করেন। এ সময় ৫টি স্থাপনায় এডিস মশার প্রজননস্থল পাওয়া যায় বিধায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাজী ফয়সাল ৫টি মামলা দায়ের করেন ও ১ লক্ষ ১ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

অঞ্চল-২ এ ভ্রাম্যমাণ আদালত ৬টি স্থাপনা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে ১টি স্থাপনায় এডিস মশার প্রজননস্থল ও ২টি স্থাপনায় এডিস মশার বংশ বিস্তার উপযোগী পরিবেশ খুঁজে পায়। এ সময় ১টি মামলা দায়ের ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন অঞ্চল-২ এ পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নাজমুল আহসান।

একই সাথে অঞ্চল-৩ এ ভ্রাম্যমাণ আদালত ৪৫টি স্থাপনা পরিদর্শন করে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ২টি স্থাপনায় এডিস মশার প্রজননস্থল এবং ৭টি স্থাপনায় এডিস মশার বংশ বিস্তার উপযোগী পরিবেশে খুঁজে পায়। এ সময় ২টি মামলা দায়ের ও ১১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতগুলো এডিস মশার বংশ বিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়ায় ৯ স্থাপনার মালিকদেরকে দ্রুত পরিস্থিতির উন্নতি ঘটানোর জন্য সতর্ক করেন।