ধুনটে ধসে যাওয়া সড়ক সংস্কার কাজ শুরু

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি :

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় সোনামুয়া হাট থেকে হাসাপোটল গ্রাম পর্যন্ত নবনির্মিত পাকা সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু করেছে এলজিইডি। প্রায় ৯মাস আগে নির্মাণ করা পাকা সড়কটির অন্তত ৫০ মিটার অংশ খালের পেটে ধসে পড়েছে।

এছাড়া খালে ধসে যাওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে একই সড়কের আরও প্রায় ১০০ মিটার অংশ। এ ঘটনায় গণমাধ্যমে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর রবিবার দুপুর থেকে সংকটির সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে।

জানা গেছে, রাজশাহী বিভাগী ইউনিয়ন প্রকল্পের আওতায় ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে ১৭৭০মিটার সড়কটি পাকা করণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রায় ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়কটির নির্মাণকাজ ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে শেষ হয়েছে। কান্তনগর খালের পাশ দিয়ে সুরক্ষা বাঁধ (গাইডওয়াল) ছাড়াই অপরিকল্পিত ভাবে সড়কটি নির্মাণ করা হয়।

যার কারনে অতি বর্ষনে এই সড়কের পাশে বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে ও ধসের ঘটনা দেখা দেয়। এ অবস্থায় গত সাত দিন ধরে অবিরাম বর্ষণে কান্তনগর গ্রামের সাইফুল ইসলামের বাড়ির সামনে সড়কের কমপক্ষে ৫০মিটার অংশ খালের পেটে ধসে যায়। ফলে সড়কটি সরু হয়ে যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়।

এদিকে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর রবিবার দুপুর থেকে সড়কটির ধসে যাওয়া অংশে বাঁশ দিয়ে প্যালাসাইটিং তৈরী করে সেখানে বালু ভর্তি বস্তা ফেলা হচ্ছে। ওই স্থানে নতুন করে ধস ঠেকাতে এবং যানবহন চলাচল স্বাভাবিক করতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া পর্যায়ক্রমে সড়কের ধসে যাওয়া অংশ স্থায়ী ভাবে সংস্কার করা হবে।

এলজিইডি’র ধুনট উপজেলা প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম বলেন, সড়কটি নির্মাণ কাজে কোন প্রকার ক্রুটি ছিল না। স্থানীয়রা সড়কের পাশে খাল থেকে বালু উত্তোলনের ফলে সড়কটি টিকসই হয়নি। অতি বর্ষণের কারণে সড়কের কিছু অংশ খালে ধসে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে।

ধুনট উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশের পর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ক্ষতিগ্রস্ত সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে। নবনির্মিত সড়কটি ভেঙে পড়ার কারণ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।