নদী বাঁচাও, দেশ বাঁচাও স্লোগানে হাইকিং ফোর্সের ৩৫০ কি.মি পরিভ্রমণ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:

হাইকিং শব্দের অর্থ “উদ্দেশ্যমূলক ভ্রমণ”। অজানাকে জানার উদ্দেশ্যে উদ্দেশ্যমূলক ভ্রমণকে হাইকিং বা পরিভ্রমণ বলা হয়। হাইকিং সাধারণত করা হয় পাহাড়ি পথে পায়ে হেঁটে। এটা ট্রেকিং এর থেকে কিছুটা ভিন্ন।

এই ভ্রমণে প্রকৃতির সাথে, পথের সাথে সৃষ্টি হয় এক নিবিড় সম্পর্ক। একটা সময় যানবাহন ছিল না, তখন মানুষ পায়ে হেঁটে দূর-দূরান্তে পাড়ি দিত।বর্তমানে সেটা খুব কমই দেখা পাওয়া যায়। তাছাড়া আমাদের দেশে পরিভ্রমনকারী বা হাইকারের সংখ্যা এখনো বেশ কম এবং আমাদের দেশে হাইকিং উপযোগী পথেরও স্বল্পতা রয়েছে।

রোভার স্কাউটের প্রতিষ্ঠাতা -লর্ড ব্যাটেন পাওয়েল অব গিলওয়েল ১৯০৮ সনে তার বই ” স্কাউটিং ফর বয়েজ’ বইতে হাইকিং সম্পর্কে লিখেন।

নব গঠিত সংগঠন – ‘হাইকিং ফোর্স বাংলাদেশ’ ক্লাবের উদ্যোগে ‘নদী বাচাঁও,দেশ বাচাঁও’ স্লোগানে পরিভ্রমণ চলতি মাসের ১৩ সেপ্টেম্বরে পরিভ্রমনটি(৩৫০ কি.মি.) শুরু হয় সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ থেকে।

পরিভ্রমনটির নেতৃত্ব দিয়েছেন ‘হাইকিং ফোর্স বাংলাদেশ’ ক্লাবের এডমিন – জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী মাসফিকুল হাসান টনি, তার সহযাত্রী হিসেবে ছিলেন -ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী জাকিয়া রাফা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বিশ্বনাথ ভৌমিক এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের আরেক শিক্ষার্থী মুস্তাকিম রহমান।

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ থেকে তারা ভ্রমণ শুরু করে। ১১ দিনের এই ভ্রমণ সূচিতে দিনে সর্বোচ্চ ৪২ কি.মি এবং সর্বনিম্ন ২৩ কি.মি হেঁটেছেন ভ্রমণকারীরা।

তাদের রুট প্ল্যান ছিল – হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ থেকে – মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল হয়ে -শমসের নগর -কুলাউড়া -সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ-সিলেট সদর-গোয়াইনঘাট-জাফলং-বিছনাকান্দি-কোম্পানীগঞ্জ-সুনামগঞ্জ সদর -লালপুর (সুনামগঞ্জ)। তারা ১১ দিনে সর্বমোট ৩৬৩ কি.মি পদযাত্রা করে।

যাত্রাপথে কখনো হাইওয়েতে, কখনো মেঠোপথ ধরে, কখনো রেললাইন দিয়ে,কখনো চা বাগানের পথ ধরে, কখনো আবার পাথরের পথ ধরে হাঁটতে হয়েছে।

দর্শনের সুযোগ হয়েছে -শ্রীমঙ্গলের অসংখ্য চা বাগান,লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের পথ,মায়াবি ঝর্ণা, জাফলং জিরো পয়েন্ট, তামাবিল স্থল বন্দর, হাকালুকি হাওর, বিছনাকান্দি, উৎমাছড়া, সাদাপাথর , ফতেহপুর চা বাগান,জাফলং চা বাগান, নিলাদ্রী লেক, মেঘালয়ার অসংখ্য পাহাড় সহ বিভিন্ন হাওড়,বিল ইত্যাদির।

উক্ত পরিভ্রমণের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল – ‘নদী বাঁচাও, দেশ বাঁচাও’। বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। তবে বর্তমানে দেশের অধিকাংশ নদীর অবস্থা খুব একটা ভালো নয়।