নিউজ প্রকাশের পরে সাংবাদিককে হত্যার হুমকি!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

টঙ্গীতে নিউজ প্রকাশের পরে সকালের সময় পত্রিকার টঙ্গী প্রতিনিধি শেখ রাজীব হাসানকে হত্যার হুমকি দেয় অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি। গত ১৬ অক্টোবর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন উত্তর দত্তপাড়া টেকবাড়ীতেম এ ঘটনা ঘটে।

এবিষয়ে রাজীব হাসান বলেন, “গত ১৩ অক্টোবরের ২০১৭ সালে তৎকালীন টঙ্গী মডেল থানাধীন আউচপাড়া মোক্তারবাড়ী রোড এলাকায় রাত আনুমানিক ৮ ঘটিকার সময় সৈকত হোসেন শাওন নামে এক যুবককে নির্মম ভাবে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৩ অক্টোবর সৈকত হোসেনের ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে “টঙ্গীর সৈকত হত্যার রহস্য আধারেই বিলীন’’ শিরোনামে একটি বিশেষ প্রতিবেদন করা হয়।

যা গত ১৪ অক্টোবর দৈনিক সকালের সময় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি প্রকাশের দুই দিন পর গত ১৬ অক্টোবরে রাত প্রায় পৌনে ১১টায় নিজ এলাকার একটি দোকান থেকে মশার কয়েল কিনে বাড়ি ফেরার সময় দুইজন যুবককে দাঁড়িয়ে কথা বলতে দেখি যাদের একজনের পরণে জিনস প্যান্ট ও কালো রঙের টি শার্ট পরিহিত ছিলো এবং অন্যজন লুঙ্গী (নিচে থ্রি কোয়াটার) ও কালো সাদা রঙের টি শার্ট পরিহিত ছিলো।

প্রতিবেদক বলেন, আমি যুবকদেরকে পার হয়ে যাওয়া মাত্রই এরা দুইজন আমার উপর ঝাপিয়ে পরে। একজন আমার গলায় ও আরেকজন আমার কোমড়ে দুই সুইচ গিয়ার ধরে রেখে আমাকে একটা অন্ধকার গলির মধ্যে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং বলতে থাকে, কিরে বড় সাংবাদিক হইয়া গেছোছ, ভালোই তো লিখা লিখি করোছ। সৈকত মরছে তিন বছর হইছে এখন এইটা নিয়া ঘাটাঘাটি করার কি দরকার।

“সৈকতরে মারছি কি হইছে কিছু টাকা গেছে, তোকে মারলেও কিছু টাকা খরচ হইবো। এমন সময় রাস্তার মধ্যে পথচারীদের আনাগোনার শব্দ প্যেয়ে আমাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এসময়ে আমার হাতে থাকা একটি সেম্ফনি মোবাইল ফোন পরে ভেঙ্গে যায়। সন্ত্রাসীরা বলে এবার সাবধান করলাম। পরে কিন্তু সময় পাবিনা বলে পালিয়ে যায়। এদের মুখে মাক্স থাকায় কাউকে চিনতে পারিনি। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছি।”

এ বিষয়ে সোমবার (১৯ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে (জিডি নং – ৮১৪, তারিখঃ ১৯.১০.২০২০ইং)।