নৌবাহিনীর সহায়তায় ত্রাণ পেল সোনাইলতলা ইউনিয়নের ১০০ দুস্থ পরিবার

আব্দুর রাজ্জাক রাজ, মোংলা প্রতিনিধি:

চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে সারাদেশে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় কর্মহীন হয়ে পড়ে অসহায় দুস্থ পরিবারের মানুষেরা। দরিদ্রদের সহায়তার লক্ষে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়। দেশের উপকূলীয় এলাকায় সরকারি ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে নিয়মিতভাবে সহায়তা করছে নৌবাহিনী।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০ টায় নৌবাহিনীর সহায়তায় মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের ১০০ টি অসহায় পরিবারের মাঝে সরকারের বরাদ্দকৃত ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এসময় মোংলা নৌ কন্টিনজেন্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও স্থানীয় জনসাধারনের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে মোংলা নৌ কন্টিনজেন্টের পক্ষ থেকে সকল সরকারী, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট অফিসে সেবা গ্রহীতাগণকে বাধ্যতা মূলকভাবে মাস্ক ব্যবহারে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করার সময় জনসাধারনকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করার জন্য বাংলাদেশ নৌবাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার ঘোষিত ১০ দফা বাস্তবায়নে বন্দর নগরী মোংলায় কঠোরভাবেও দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে নৌবাহিনী।

কোভিড ১৯ রোধকল্পে গত সোমবার (৩ আগস্ট) মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ থেকে প্রকাশিত বাংলাদেশ সরকারের ১০ দফা নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছে নৌবাহিনীর কন্টিনজেন্ট। মঙ্গলবার পৌর শহর ও গ্রামের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে তল্লাশী চৌকি বসিয়েছে নৌবাহিনী।

নির্দেশনা অনুযায়ী রাত ১০ টা থেকে সকাল ৫ টা পর্যন্ত জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাসস্থানের বাইরে যাওয়া যাবেনা। হাট বাজার দোকান পাট ও শপিং মলে পাস্পরিক দুরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

শপিং মলে প্রবেশ মূখে তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র ও হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা রাখাসহ স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা, হাট বাজার দোকান পাট ও শপিং মল অবশ্যই সন্ধ্যা ৬ টার মধ্যে বন্ধ করা, পণ্য ও খাদ্য ক্রয়ে অবশ্যই জনসাধারনকে ই- কমার্স ব্যবহারে উৎসাহিত করা, বাসস্থানের বাইরে সর্বাবস্থায় মাস্ক ব্যবহার করা, ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে অনুষ্ঠান আয়োজনে অগ্রাধিকার দেওয়া এবং ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রনালয় কর্তৃক সময় নির্দেশনা প্রতিপালন পূর্বক মসজিদে নামাজ আদায় করা বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। এছাড়াও বাংলাদেশ নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে জনসচেতনতামূলক টহল অব্যাহত রয়েছে।