‘পায়রা বন্দরের কাজে গতিশীলতা এসেছে, শীঘ্রই দৃশ্যমান জায়গায় নিয়ে যাব’

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, পায়রা বন্দরের কাজে গতিশীলতা এসেছে। চ্যালেঞ্জ আছে, সেগুলো মোকাবিলা করে শীঘ্রই পায়রা বন্দরকে দৃশ্যমান জায়গায় নিয়ে যাব।

প্রতিমন্ত্রী আজ পায়রা বন্দরের সম্মেলন কক্ষে বন্দর কর্কর্তাদের সাথে বৈঠকে এসব কথা বলেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্য উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা, পায়রা বন্দরের চেয়ারম্যান কমডোর হুমায়ুন কল্লোল এবং বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক।

প্রতিমন্ত্রী পায়রা বন্দরের অফিস প্রাঙ্গণে একটি গাছের চারা রোপন করেন। পরে প্রতিমন্ত্রী বন্দরের উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে সংসদ সদস্য মো. মহিবুর রহমান, সংসদ সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা, পায়রা বন্দর ও বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাদেরকে শুধু স্বপ্ন দেখাচ্ছেননা, তিনি স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে চলেছেন। করোনা পরিস্থিতিতেও প্রধানমন্ত্রী বলেছেন একজন মানুষ গৃহহিন থাকবেনা। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বিশাল কর্মযজ্ঞ বাস্তবায়ন হচ্ছে। স্টেপ বাই স্টেপ কাজ হবে। আগামি প্রজন্মের জন্য প্রধানমন্ত্রী কাজ করছেন।
দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে কর্মকর্তাদের আহবান জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, কাজের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে।

বৈঠকে জানানো হয় যে, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে এপর্যন্ত ৭৩টি জাহাজ পায়রা বন্দরে এসেছে। এর মধ্যে ৩১টি কয়লাবাহি জাহাজ। সরকার এসব জাহাজ হ্যান্ডলিংয়ের মাধ্যমে ১৭৮ কোটি টাকা আয় করেছে।

উল্লেখ্য, পায়রা বন্দর অবকাঠামো সুবিধাদি উন্নয়ন প্রকল্প ও প্রথম টার্মিনাল
প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এগুলোর কাজ ২০২২ সাল নাগাদ শেষ হবে।