পুরাটায় সাদ্দাম হোসেনের মতো সেজেছিলেন আকবর

বিশেষ প্রতিবেদক ও সিলেট সংবাদদাতা:

ইরাকের সাবেক রাষ্ট্রপতি সাদ্দাম হোসেনের মতো সেজেছিলেন এসআই (বরখাস্ত) আকরাম। মুখে দাড়ি, গলায় পুঁতির মালা, ‘খাসিয়া’ সেজেছিলেন তিনি। নিজেকে আত্মগোপন করতে বেশভূষা পাল্টে ফেলেন এসআই (বরখাস্ত) আকরাম। ঠাঁই নেন খাসিয়া পল্লীতে।

খাসিয়াদের মতো পোশাক পরেন। মুখে দাড়ি রাখেন। পরনে খয়েরি রঙের ফুলহাতা শার্ট। নাইলনের রশি দিয়ে বেঁধে রাখেন কোমর। গলায় ঝোলানো পুঁতির মালা। পরিবর্তন আনেন চুলের স্টাইলেও। উদ্দেশ্য ছিল সময়-সুযোগমতো সীমান্ত অতিক্রম করার। কিন্তু সেই সুযোগ আর হয়ে উঠছিল না। কেননা সেখানে ছিল কড়া নজরদারি।

ফলে খাসিয়া পল্লীতে তাকে থাকতে হয়েছে বেশ কিছুদিন। একপর্যায়ে খাসিয়ারাই তাকে গ্রেপ্তারে সহযোগিতা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনে রায়হান আহমদের মৃত্যুর ঘটনার মূল হোতা এসআই (বরখাস্ত) আকবর হোসেন ভূঁইয়া। আজ সোমবার সিলেটের কানাইঘাটের ডোনা সীমান্ত এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সিলেট পিবিআইর পুলিশ সুপার খালেকুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ১১ অক্টোবর বিকেলে সিলেট নগরের আখালিয়া নেহারিপাড়া এলাকার বাসিন্দা রায়হান আহমেদের (৩৫) মরদেহ পাওয়া যায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা সেখানে ছুটে যান। তাঁরা রায়হানের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি বাদী হয়ে ওই দিনই সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই ঘটনায়, এসআই আকবরসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

সীমান্ত এলাকার একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর থেকে আকবর চেষ্টা করেছেন পালিয়ে থাকার। এ ক্ষেত্রে দেশে অনিরাপদ বোধ করায় তিনি বিভিন্ন সোর্স কাজে লাগান, চেষ্টা করেন প্রতিবেশী দেশ ভারতে পালিয়ে যাওয়ার। এ উদ্দেশ্যে প্রথমে তিনি সীমান্ত এলাকায় পাড়ি জমান। সিলেটের কানাইঘাটের ডোনা সীমান্তের খাসিয়া পল্লীকেই বেছে নেন তিনি। আশ্রয় নেন ওই পল্লীতেই।

ডোনা সীমান্তের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গ্রেপ্তারের সময় আকবর আগ বাড়িয়ে পুলিশকে নিজের পরিচয় দেন। এ সময় তাঁর বেশভূষা অনেকটা খাসিয়া পল্লীতে বসবাসকারীদের মতো ছিল। গলায় পুঁতির মালাও দেখা যায়।

সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লুৎফর রহমান জানান, ভারতে পালিয়ে যাওয়ার পথে কানাইঘাটের ডনা সীমান্ত থেকে জেলা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

দুরন্ত/৯নভেম্বর/পিডি