ফ্রান্সে এবার চার্চের বাইরে ধর্মযাজকের বুকে গুলি

দুরন্ত ডেস্ক:

ফ্রান্সের লিওন শহরের একটি চার্চের বাইরে বন্দুকহামলার শিকার হয়েছেন এক ধর্মযাজক। শনিবার বিকেলে তার বুক বরাবর খুব কাছ থেকে দুইবার গুলি করা হয় বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, নিকোলাস কাকাভেলাকি নাম ৫২ বছর বয়সী গ্রিক অর্থোডক্স ধর্মযাজককে শটগান দিয়ে গুলি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। সূত্র: এনডিটিভি

গুলির পরপরই হামলাকারী পালিয়ে যায়। তবে লিওনের সরকারি কৌঁসুলী জানিয়েছেন, প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনার ভিত্তিতে সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে।

কৌঁসুলী নিকোলাস জ্যকুয়েঁ বলেন, প্রাথমিক সাক্ষীদের বর্ণনার সঙ্গে সামঞ্জস্য রয়েছে এমন একজনকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

তবে ওই ব্যক্তিকে আটকের সময় তার কাছে কোনও অস্ত্র পাওয়া যায়নি বলেও জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া, হামলার কারণ এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি কোনও পক্ষ।

জ্যকুয়েঁ বলেন, এই পর্যায়ে কোনও ধারণা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না বা কোনও পক্ষ নেয়া হচ্ছে না।

লিওনের সরকারি কৌঁসুলীর কার্যালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রত্যক্ষদর্শী এবং টহলরত পুলিশরা গুলির আওয়াজ শুনতে পান। এরপর এক ব্যক্তিকে সেখান থেকে পালিয়ে যেতে দেখেন এবং চার্চের পেছনের দরজায় একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পান।

কৌঁসুলীরা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে ফ্রান্সের ন্যাশনাল অ্যান্টি-টেরোরিস্ট প্রসিকিউশনের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা হচ্ছে বলেও জানানো হয়েছে।

শনিবারের এ হামলার মাত্র দু’দিন আগেই গত বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের নিস শহরের একটি চার্চে তিনজনকে হত্যা করা হয়। এর আগে, চলতি মাসের শুরুর দিকে শিরশ্ছেদ করা হয় এক স্কুলশিক্ষকের। তিনি ক্লাসরুমে মহানবী (স)-এর বিতর্কিত ব্যঙ্গচিত্র দেখিয়েছিলেন।

দুরন্ত/১নভেম্বর/পিডি