বগুড়ায় পুলিশ দেখে মাদক ব্যবসায়ীর নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মৃত্যু

বগুড়া প্রতিনিধি:

বগুড়ার মহাস্থানে পুলিশ দেখে করতোয়া নদীতে ঝাঁপিয়ে নিখোঁজ যুবক মাসুম মিয়ার (৩৫) মরদেহ ভেসে উঠে। সোমবার (৩ আগস্ট) দুপুরে পরে পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। মৃত মাসুমের নামে ৭টি মাদক মামলা রয়েছে।

নিহত মাসুম মিয়া মহাস্থান বারিদার পাড়া গ্রামের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বজলুর রহমানের ছেলে।

বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গত রোববার (২ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টার দিকে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ মহাস্থান বারিদার পাড়া এলাকায় নয়ন নামে এক মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করে।

এসময় মাসুমকে পুলিশ গ্রেফতার করতে গেলে তিনি দৌঁড় দেয়। এসময় মাসুম নিজেকে বাঁচাতে করতোয়া নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়ে। ঝাঁপিয়ে পড়ার পর থেকে মাসুম নিখোঁজ ছিলেন। রাতে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা নিখোঁজ মাসুমের সন্ধানে করতোয়া নদীতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করতে না পেরে ফিরে যায়।

আজ সোমবার দুপুরের দিকে করতোয়া নদীর ভাটিতে মাসুমের মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। মরদেহ উদ্ধারের পর বিক্ষুদ্ধ জনগণ বগুড়া-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম বদিউজ্জামান জানান, নিহত মাসুম মাদক বিক্রেতা। পুলিশ দেখেই তিনি দৌঁড় দিয়ে নদীতে ঝাঁপ দেন। সোমবার দুপুরে তার মরদেহ নদীতে ভেসে উঠে। মৃত মাসুমের নামে ৭টি মাদক মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

দুরন্ত/৩আগস্ট/পিডি