বন্যার পানিতে ডুবে নিখোঁজের পরে যুবকের লাশ উদ্ধার

শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরের নকলায় বন্যার পানিতে ডুবে নিখোঁজের প্রায় ১৮ ঘন্টা পর পলাশ মিয়া (২১) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ২৫ জুলাই শনিবার ভোরে উপজেলার উরফা ইউনিয়নের বারমাইশা উত্তরপাড়া গ্রামের বিড়নের ঘাট ব্রিজপাড় এলাকায় পানির নিচ থেকে পলাশের লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। পলাশ স্থানীয় আব্দুল বারেকের ২ ছেলের মধ্যে বড় সন্তান। পলাশ শুক্রবার দুপুরে বিড়নের ঘাটে গোসল করতে গিয়ে ব্রিজ থেকে লাফ দিয়ে পানিতে পড়ে নিখোঁজ ছিল।

জানা যায়, শুক্রবার জুমার নামাজের আগে পলাশ স্থানীয় যুবকদের সাথে গোসল করতে ব্রিজপাড়ে যায়। গোসল শেষে সবাই যার যার মতো বাড়ি ফিরে গেলেও পলাশ সকলের অজন্তে পানিতে ডুবে নিখোঁজ থাকে। সন্ধ্যা হয়ে গেলেও পলাশ তার বাড়িতে না ফিরলে তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন পরিবারের লোকজন।

সম্ভাব্য জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পেয়ে পরিবারের লোকজনের ভাষ্য অনুযায়ী ও বেশ কয়েকজনের সাথে কথা বলে মোটামুটি নিশ্চিত হয়েই গোসলের স্থানে পলাশকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন এলাকাবাসী। রাত পর্যন্ত বন্যায় টুইটুম্বুর পানিতে তাকে খোঁজে না পেয়ে অবশেষে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছলেও স্রোতের কারণে তারা রাতে পানিতে নামতে পারেনি। পরে শনিবার ভোর ৬ টার দিকে তারা খোঁজাখুঁজি শুরুর করার মাত্র কয়েক মিনিটের মাথায় পলাশের লাশ পানির নিচ থেকে উদ্ধার করে।

এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সারোয়ার আলম তালুকদার, নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন শাহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উরফা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল হক হীরা, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নূরে আলম তালুকদার ভূট্টো প্রমুখ।