বায়ার্ন মিউনিখ ও সেভিয়া উয়েফা সুপার কাপের ফাইনালে

দুরন্ত ডেস্ক:

দুই ইউরোপ সেরা দল উয়েফা সুপার কাপের ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে বায়ার্ন মিউনিখ ও সেভিয়া। দুই দলই একবার করে ট্রফি জিতেছে। এবার দ্বিতীয় ট্রফি জেতায় হ্যান্সি ফ্লিকের প্রতিপক্ষ হুলেন লোপেতেগুই।

এই ম্যাচ দিয়ে ইউরোপে ফুটবল মাঠে ফিরছে দর্শক। হাঙ্গেরির পুসকাস অ্যারেনায় ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত একটায়।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের চ্যাম্পিয়ন। আর ইউরোপা লিগের চ্যাম্পিয়ন। ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে দুই চ্যাম্পিয়ন এবার একই মঞ্চে। বায়ার্নের প্রতিপক্ষ সেভিয়া।

দুই শিরোপা জয়ীদের এবারে বিগ ফাইনালে কে জিতবে? এমন আলোচনা ছাপিয়ে এই ম্যাচে স্পটলাইট দর্শকদের দিকে। এই ম্যাচ দিয়ে ইউরোপের ফুটবল মাঠে দর্শক ফিরছে। প্রায় ২০ হাজার মানুষের চোখ জোড়া তাকিয়ে থাকবে নয়্যার-রাকিতিচদের দিকে। সেজন্য প্রস্তুত ইংল্যান্ডের পুসকাস স্টেডিয়াম। তবুও নিরাপত্তা বলয়ের মাঝেও সাবধানী দর্শকরা।

একাদশে দৃষ্টি দেয়া যাক। বর্তমান বায়ার্ন মিউনিখ সময়ের সেরা দল। সমালোচকদের এমন মন্তব্য হ্যান্সি ফ্লিকের দলটা বার বার প্রমাণ করেছে। ৭ ডিসেম্বর ২০১৯। শেষ ৩১ ম্যাচ ধরে হারেনি ট্রেবল জয়ীরা। বার্সার পর শেষ ম্যাচে শালকে কেও ৮ গোলের ব্যবধানে পরাজয়। মুলার-বোয়েটাং- গ্যানাব্রিরা যেভাবে প্রতিপক্ষকে ধবল ধোলাই করছেন তা চোখ রাঙ্গাচ্ছে সেভিয়াকেও।

তার ওপর ৪৬ ম্যাচে ৫৫ গোল করা বাভারিয়ান গোল মেশিন রবার্ট লেওয়ানডোভস্কি তো আছেনই। গোল পোস্টের নিচে জার্মান প্রাচীর ম্যানুয়াল নয়্যার। লিরয় সানের বদলে হ্যান্সি ফ্লিক একাদশে খেলাবেন কিংসলে কোম্যানকে। প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দেয়ার মতো গতিময় একটা দলে যা যা লাগে সবই আছে বায়ার্ন ভাণ্ডারে।

হ্যান্সি ফ্লিক বলেন, ‘সেভিয়া ইউরোপা লিগের ফাইনালে ইন্টার মিলানের মত দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। চ্যাম্পিয়ন হওয়া একটা দলের বিপক্ষে জিততে হলে আপনাকে সবসময় সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। আমরা সেটা খেলার জন্যই মুখিয়ে আছি।’

অন্যদিকে, স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়া অদম্য। ইউরোপা লিগে হারিয়েছে বাঘা বাঘা জব ক্লাবকে। দল আছে সম্পূর্ণ ফিট। তাই কিছুটা স্বস্তিতে কোচ হুলেন লোপেতেগুই। তার উপর চলতি মাসে তারা বার্সা থেকে দলে ভিড়িয়েছেন ইভান রাকিতিচকে। চাপ সামলে খেলার চ্যালেঞ্জ তাই সেভিয়ার সামনে।

হুলেন লোপেতেগুই বলেন, ‘বায়ার্ন এই দলটা বিধ্বংসী। তারা সেরা। আমার মনে হয় এটাই তাদের বড় দুর্বলতা। এই সুযোগ যদি আমরা কাজে লাগাতে পারি তবে ভালো কিছু করা অসম্ভব নয়। আমরা প্রস্তুত সেরা একটা ম্যাচ উপহার সেয়ার জন্য।’

এর আগে আন্তর্জাতিক মঞ্চে দুই দলের একবারই দেখা হয়েছিল। ২০১৭-১৮ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে ২-১ গোলের জয়ে অবশ্য হেসেছিল জার্মান জায়ান্টরাই।