বিক্রি হয়ে গেল ঢাকা ১৮ আসনের মনোনয়ন!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা ১৮ আসনের মনোনয়নের দলীয় ঘোষণা না আসলেও একটি জাতীয় দৈনিক প্রকাশ করেছে যে আলহাজ্ব হাবিব হাসান ঢাকা ১৮ আসনের মনোনয়ন পেয়েছেন! সেটি নিয়ে আওয়ামী লীগের কর্মী তাহেরা খাতুন লুৎফা তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন যে হাবিব হাসান একজন রাজাকারের ছেলে। আর বিক্রি হয়ে গেলো ঢাকা ১৮ আসনের মনোনয়ন!

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, হাবিব হাসানের পিতা ১৯৭১ সালে ঢাকা ১৮ আসনের এলাকার শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন। তার আপন ভাই বৃহত্তর উত্তরার বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

তিনি আরো লিখেন, তার চাচাতো ভাই লিটন, বৃহত্তর উত্তরা থানা বিএনপির সভাপতি ছিলেন। হাবিব হাসানের অন্য ভাই রিয়াজ ১/১১ এর আগের দিন মান্নান ভূঁইয়ার হাত ধরে বিএনপিতে যোগদান করে। যার প্রমাণ টেলিভিশন ও মিডিয়াতে রয়েছে।

তাহেরা খাতুন লুৎফা লিখেন, হাবিব হাসানের পরিবারের বিরুদ্ধে ভূমিদস্যুতা ও চাঁদাবাজিসহ অসৎ অনেক অনৈতিক ও জনবিরোধী কুকর্মের অভিযোগ মানুষের মুখে মুখে রয়েছে। হাবিব হাসানের পরিবারকে চাঁদা না দিয়ে উত্তরায় কোন জমি বা প্লট বেচাকেনা হয় না।

তিনি লিখেন, হিন্দুদের জমি দখল করে তাদের দেশত্যাগে বাধ্য করার অভিযোগও তার বিরুদ্ধে রয়েছে। তিনি বিশাল অঙ্কের টাকার বিনিময়ে ঢাকা-১৮ আসনের নিশ্চিত নমিনেশন পেয়েছেন এ খবর এখন সকলের মুখে মুখে।

তিনি আরো লিখেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রাচীনতম দলে টাকার বিনিময় নমিনেশন কেনাবেচা আদৌ যৌক্তিক কিনা তা ভেবে দেখার সময় এসেছে।

তাহেরা খাতুন লুৎফা লিখেন, শেখ হাসিনা যেখানে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করে দেশ ও বিশ্ববাসীর কাছে প্রসংশিত হয়েছেন, সেখানে নমিনেশন নিয়ে দুর্নীতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক হতাশার সৃষ্টি করেছে।

‌’টাকার কাছে তাহলে কি পরাজিত হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি ? অত্র এলাকার মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা ছিল – শিক্ষিত সৎ ও দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত কোনো যোগ্য প্রার্থী এ অঞ্চলের নৌকার হাল ধরুক।’

উল্লেখ্য, এই আসনে দীর্ঘদিনের সংসদ সদস্য ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট সাহারা খাতুন। সবস্তরের জনগণ চায় তার মত একজন সৎ, কর্মী বান্ধব এবং যোগ্য নেতৃত্ব এই আসনের নৌকার হাল ধরুক।