‘বিমানবন্দর ও যাত্রীদের নিরাপত্তায় কোন আপোষ নয়’

সিলেট প্রতিনিধি:

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী বলেছেন, বিমানবন্দর ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে কোন ধরনের আপোষ করা চলবে না। যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও মোকাবেলার জন্য বিমানবন্দরে কর্মরত সবাইকে সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে। নিরাপত্তায় বিঘ্ন সৃষ্টি করার চেষ্টাকারীদের কোন প্রকার ছাড় প্রদান করা হবে না।

আজ সিলেটে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের “ফুল স্কেল এয়ারপোর্ট ইমারজেন্সি এক্সেরসাইজ- ২০২০” ও আন্তর্জাতিক লাউঞ্জের সম্প্রসারিত অংশের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বিমানবন্দরে যাত্রী সেবার মান উন্নয়ন ও যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। দেশের সকল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। নিরাপত্তা নিশ্চিতে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও ইতোমধ্যে ফায়ার এলার্ম সিস্টেম, ডুয়েল ভিউ স্ক্যানিং মেশিন, ই.টি.ডি, আন্ডার ভেহিকেলস স্ক্যানিং সিস্টেমসহ সকল আধুনিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম স্থাপন করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও তত্ত্বাবধানে দেশের সকল আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দরে বড় ধরনের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। সিলেট বাসীর সুবিধার কথা ভেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেরও সম্প্রসারণের কাজে হাত দেয়া হয়েছে। মোট ২,৭৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে একাজ সম্পন্ন হবে।

তিনি বলেন, এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৪৫১ কোটি ৯৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রানওয়ে শক্তিশালী করণ ও এয়ার ফিল্ড গ্রাউন্ড লাইটিং সিস্টেম স্থাপন কাজ সমাপ্তির পথে। দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গত ০১ অক্টোবর উদ্বোধন করেছেন। এ পর্যায়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় ২,৩০৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এখানে নতুন আধুনিক টার্মিনাল ভবন,কার্গো ভবন, কন্ট্রোল টাওয়ার, প্রশাসনিক ভবন, মেইন্টেনেন্স ভবন, এপ্রোন, ট্যাক্সিওয়ে ও ইউটিলিটি স্টেশন নির্মাণ করা হবে। এই কাজ সমাপ্তির পর ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হবে একটি সর্বাঙ্গীণ আধুনিক বিমানবন্দর।

মাহবুব আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে পরিচালিত বর্তমান জনবান্ধব সরকার সব সময় সবকিছু সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্য কাজ করছে। যাত্রীসেবার মান উন্নয়নে দেশের সব বিমানবন্দরের সাথে সাথে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও কার্যক্রম পূর্বের তুলনায় বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিমান যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে নিরাপদ ও স্বস্তির পরিবেশ তৈরী করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে এ বিমানবন্দরের নিরাপত্তা, যাত্রী ও কার্গো হ্যান্ডেলিং কার্যক্রম আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা হয়েছে। যাত্রীদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এই বিমানবন্দরের আন্তর্জাতিক লাউঞ্জ সম্প্রসারণ করা হয়েছে। সুপরিসর এই লাউঞ্জ হতে বিমান উঠা-নামা সরাসরি প্রত্যক্ষ করা যায় যা যাত্রীদের অপেক্ষার সময়কে উপভোগ্য করে তুলবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মোঃ মফিদুর রহমান, সদস্য ( পরিচালনা ও পরিকল্পনা) এয়ার কমোডর মোঃ খালিদ হোসেন, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমেদ ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমেদ প্রমূখ।