ব্রাজিলের ‘সেভেন আপ’ নাকি বার্সার ‘এইট আপ’?

দুরন্ত ডেস্ক:

২০১৪ বিশ্বকাপ ব্রাজিলের জন্য দুঃখজনক ছিল। তবে তা অনেকেই ভুলে গেছে। জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে হার এখন ফুটবলর রূপকথার অংশ হয়ে গেছে। এরপর থেকে আর্জেন্টাইন ভক্তরা ব্রাজিলিয়ানদের ‘সেভেন আপ’ বলে ট্রল করতেন।

এবার ব্রাজিলিয়ানরা সুযোগ পেয়েছে। লিওনেল মেসির দল বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ৮ গোল খেয়েছে।

বায়ার্ন মিউনিখের এই দুর্দান্ত জয়ের নায়ক টমাস মুলার ব্রাজিলের বিপক্ষে সেই ম্যাচেও ছিলেন। গোলও করেছিলেন। তবে শুক্রবার রাতের ম্যাচটাই তার কাছে সেরা।

৬ বছর আগে বিশ্বকাপের ওই ম্যাচে জার্মানির হয়ে প্রথম গোলটি করেছিলেন মুলার। আর বর্তমান বায়ার্ন ম্যানেজার ফ্লিক তখন ছিলেন জার্মান কোচ জোয়াকিম লোর সহকারী।

যে প্রসঙ্গে মুলার বলছেন, ‘ব্রাজিলের বিপক্ষে ওই ম্যাচটায় এই খেলার মতো নিয়ন্ত্রণ ছিল না। সে দিন আমরা নিজেদের ছাপিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু বার্সেলোনার বিপক্ষে এই ম্যাচে বায়ার্নের প্রত্যেকে শুরু থেকেই নৃশংসভাবে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে রেখে দিয়েছিল।’

বার্সার বিপক্ষে জোড়া গোল করে আবেগাপ্লুত মুলারের প্রতিক্রিয়া, ‘ফোন আর এসএমএস বার্তায় ভাসছি। কিন্তু এবার সব ভুলে যেতে হবে। কারণ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে না পারলে এই জয় অর্থহীন হয়ে যাবে। মনে রাখতে হবে, এরকম বড় জয়ের পরেই কিন্তু বিপর্যয় আসতে পারে।

তবে বার্সেলোনার মতো বড় দলের বিপক্ষে এ রকম জয়ের আনন্দই আলাদা। বার্সার মতো তারকাখচিত দলের বিপক্ষে শুরু থেকেই আমরা আক্রমণাত্মক ছিলাম। আমাদের লক্ষ্য ছিল, বল পেলেই দ্রুত বার্সেলোনা রক্ষণ ভাঙতে হবে। সেটা করতে পেরেছি বলেই আমরা সফল।’