ভাঙ্গা বালতির মূল্য চাওয়ায় বড়ভাইকে খুন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

দিনদিন মানুষ হারিয়ে যাচ্ছে অন্যায়ের গহীনে। প্রতিদিন এ সমাজে সংগঠিত হচ্ছে বহু অপরাধ। যেখানে পর মানুষ তো দুরের কথা রেহাই পাচ্ছে না নিজের পরিবারের আপন লোকেরাও। এবার নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় ঘটলো সেরূপ এক ঘটনা।

প্রচুর বৃষ্টিতে কলা গাছ পরে ভেঙ্গে গেছে প্লাস্টিকের বালতি। সেই ভাঙ্গা বালতির মূল্য চাওয়ায় বড় ভাইকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় প্রথমে অভিযুক্ত ছোট ভাইয়ের স্ত্রী ও পরে তার ছেলে সাকিবকে জেলার রূপগঞ্জের গাউছিয়া থেকে আটক করে পুলিশ।

শনিবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম।

এর আগে, গত শুক্রবার বিকেলবেলা জেলার আড়াইহাজার উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ষাড়পাড়া গ্রামে ঝড়ে বাড়িতে কলাগাছ পরে বড় ভাই ফজলুল হকের ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বালতি ভেঙে যায়। এজন্য সে তার ছোট ভাই এবাদুল্লাহকে নতুন বালতি কিনে দিতে বলেন।

এর ক্ষোভে ছোট ভাই এবাদুল্লাহ (৫৫), তার স্ত্রী সেলিনা বেগম (৫০) ও ছেলে সাকিব (২২) মিলে ফজলুল হককে মারধর করে। ওই সময় ছোট ভাই এবাদুল্লাহ বড় ভাই ফজলুল হকের মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় ফজলুল হক। ঘটনার পর ফজলুল হকের স্ত্রী’র মামলার প্রেক্ষিতে এবাদুল্লাহর স্ত্রী সেলিনা বেগমকে আটক করে পুলিশ। একই সাথে গত শনিবার আরেক আসামী এবাদুল্লাহর ছেলে সাকিবকে আটক করে পুলিশ।