ভারতের চুরি হওয়া মোবাইল বাংলাদেশে ঢুকছে!

দুরন্ত ডেস্ক:

কলকাতার দুই হাজার টাকার চোরাই মোবাইল বাংলাদেশে এনে তা বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) এ রকমই একটি মোবাইল পাচার চক্রের সন্ধান পেল কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

কলকাতার স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মধ্য কলকাতার আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের একটি গেস্টহাউস থেকে জাহাঙ্গীর ও আবদুল গফফর নামক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জাহাঙ্গীর চট্টগ্রামের বাসিন্দা এবং তার সঙ্গী গফ্ফর নদিয়ার গাংনাপুরের বাসিন্দা।

এক বাংলাদেশি নাগরিকসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ১০৭টি বিভিন্ন কোম্পানির স্মার্টফোন।

আটকদের কাছ থেকে পুলিশ জানতে পেরেছে, কলকাতা বা শহরতলিতে প্রতিদিন যেসব মোবাইল ফোন চুরি হয়, তা শহরের কয়েকটি নির্দিষ্ট চোরাইবাজারে বিক্রি হয়। সেই বাজারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখে এই বাংলাদেশি চক্র।

তারা বন্দর এলাকায় এ রকম একটি চোরাই বাজার থেকে এই মোবাইলগুলো কিনেছিল।

আটকদ্বয় জানিয়েছে, কয়েকটি ব্র্যান্ডের মোবাইলের দাম এ দেশের তুলনায় বাংলাদেশে প্রায় দ্বিগুণ। বাংলাদেশে এসব মোবাইলের চাহিদা অনেক। চোরাই বাজার থেকে ওই ধরনের মোবাইল ২ থেকে ৫ হাজার টাকায় কিনে নিয়ে যায় বাংলাদেশি পাচারকারীরা।

বাংলাদেশে ওই মোবাইলের বাইরের অংশ কিছুটা পরিবর্তন করে বিক্রি করা হয় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকায়। কয়েক বছর আগে কলকাতা পুলিশের স্পেশ্যাল টাস্কফোর্স এ রকম প্রায় ৩৫০টি মোবাইল উদ্ধার করেছিল।

কলকাতা পুলিশের এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, আমাদের এখানে যে মোবাইল চুরি হচ্ছে তা বাংলাদেশে চলে গেলে আমরা উদ্ধার করতে পারছি না। অন্য একজন কর্মকর্তা বলেন, এই চোরাই মোবাইল সীমান্ত পেরিয়ে কোনও জঙ্গি দলের সদস্যদের কাছে পৌঁছলে সেটা আরও চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

দুরন্ত/১৫অক্টোবর/ডিপি