ভৈরবে অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:

কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলায় পঁয়ত্রিশ বৎসর বয়সী সোহেল ওরফে বদন খন্দকার নামে এক অটো চালকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার কালিকাপ্রসাদ এলাকায় ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়কের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত সোহেল ওরফে বদন খন্দকার পার্শ্ববর্তী কুলিয়ারচর উপজেলার সালুয়া ইউনিয়নের মাঝেরচর গ্রামের হান্নান মিয়ার ছেলে। নিহত সোহেল ওরফে বদন খন্দকারের ঘাড় মটকানো, শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে ও পিছনে হাত বাঁধায় অবস্থায় পড়েছিল।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে ভৈরবের কালিকাপ্রসাদে ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক সড়কের পাশে এলাকাবাসী একটি মৃত দেহ পড়ে থাকতে দেখে।

মৃতদেহটির হাত বাঁধা অবস্থায় ছিল। পরে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে সড়কের পাশ থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে। এ সময় মৃতের স্বজনরা তার লাশ শনাক্ত করেন।

মৃতের পরিবারের সদস্যরা জানান, পেশায় তিনি ইজিবাইক/অটোচালক। সে কুলিয়ারচর দ্বাড়িয়াকান্দি ও নরসিংদির বেলাবো সড়কে অটোরিকশা চালাতো। গতকাল মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছি না।

আজ বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আলী মোহাম্মদ রাশেদ জানান, সকালে এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে। পূর্ব শত্রুতার কারণে বা অটোরিকশা ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

উদ্ধারকৃত লাশের পিছনে হাত বাঁধা,ঘাড় মটকানো ও শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মৃতদেহ উদ্ধার করে পোস্টমর্টেম এর জন্য কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।