রাবিতে মৃত্যুঞ্জয়ী প্রকাশনা পাঠ উন্মোচনে শোক দিবস পালিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি,

গভীর শোক ও বিনম্র শ্রদ্ধায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোকদিবস পালিত।

আজ শনিবার (১৫আগস্ট) দিবসের প্রারম্ভে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ভবনের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলিত হয়।

সকাল ৯ টায় উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহানের নেতৃত্বে শোক র‌্যালি বের হয়। পুষ্প হাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।সেখানে তাঁরা বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করেন।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক হল, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, ক্যাম্পাসের স্কুলসমূহ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন সেখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

১০টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর উপর তথ্যচিত্র প্রদর্শন ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রকাশিত ‘মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক প্রকাশনার পাঠ উন্মোচন করেন উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান।

অনুষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবস পালন কমিটির সদস্য-সচিব ও প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমানের সঞ্চালনায় এবং শোক দিবস পালন কমিটির সভাপতি উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান এবং উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী।

এছাড়াও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও শেখ রাসেল মডেল স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন খতম ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

অন্যান কর্মসূচিতে থাকছে, সন্ধ্যা ৬টায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা এবং শহীদ মিনার চত্বরে প্রদীপ প্রজ্বালন।

এছাড়াও কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ।