রূপগঞ্জে দাউদপুর ইউনিয়ন নির্বাচনে প্রার্থীরা যে প্রতীক পেলেন

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আসন্ন দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী রবিবার ( ৪ অক্টোবর) সকালে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের হলরুমে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয় উপজেলা নির্বাচন অফিস। চেয়ারম্যান পদে দুই জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে।

আওয়ামী লীগ সমথিত চেয়ারম্যান প্রার্থী দাউদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মাস্টার ( গ্রাম তীরমারা জিন্দা) পেয়েছেন নৌকা প্রতীক, স্বতন্ত্র প্রার্থী রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শরিফ আহমেদ টুটুল (গ্রাম দাউদপুর) পেয়েছেন আনারস প্রতীক।

প্রতীক বরাদ্দ অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ নুসরাত জাহান, বিশেষ অতিথি ছিলেন রূপগঞ্জ থানার তদন্ত কর্মকর্তা এইচ.এম জসিম উদ্দিন। এসময় চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শরিফ আহমেদ টুটুলসহ অন্য প্রার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত ১ নং ওয়াডে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে । তার মধ্যে মাসুদা (পুটিনা) তালগাছ মার্কা, শাহীনা আক্তার (কলিঙ্গা) সূর্যমুখী ফুল মার্কা, শিরিনা বেগম ( দাউদপুর) মার্কা বই।

সংরক্ষিত ২ নং ওয়াডে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। তার মধ্যে আলেয়া বেগম (বেলদী) মার্কা বই, মাকছুদা আক্তার (কাজিরটেক) সূর্যমুখী ফুল মার্কা, মোছাঃ হাওয়া বেগম ( হাটাব) মাইক মার্কা, রিনা বেগম (রোহিলা) তালগাছ মার্কা ।

সংরক্ষিত ৩ নং ওয়াডে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। তার মধ্যে জেসমিন আক্তার ( নোয়াগাঁও) তালগাছ মার্কা, নাছরিন বেগম( তিনওলপ) বই মার্কা, ফারজানা আক্তার ববি ( কালনী) সূর্যমুখী ফুল মার্কা, মোছাঃ ময়না বানু ( কালনী) কলম মার্কা।

সাধারণ – ১ নং ওয়াডে ( দাউদপুর) ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ৩শ ৮৬ ভোট। প্রার্থী আবু বকর ছিদ্দিক তার প্রতীক মোরগ , মোরশেদ তার প্রতীক ভ্যানগাড়ী ,কামাল হোসেন তার প্রতীক ফুটবল, হেলাল উদ্দিন তার প্রতীক ঘুড়ি, শফিকুর রহমান তার প্রতীক টর্চ লাইট।

সাধারণ -২ নং ওয়াডে ( খৈসাইর ) ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ২শ ১৪ ভোট। প্রার্থী আবু তৈয়ব মো: আনোয়ার হোসেন ( স্বপন) তার প্রতীক ভ্যান গাড়ী, আরিফুল ইসলাম তালুকদার তার প্রতীক ফুটবল, আবুল কাশেম তার প্রতীক টর্চ লাইট, আবুল হোসেন তার প্রতীক মোরগ, নাজিম উদ্দিন তার প্রতীক তালা, রবিউল ইসলাম তার প্রতীক ঘুড়ি।

সাধারণ -৩ নং ওয়াডে ( আগলা,পুটিনা) ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ৩শ ৩৫ জন। প্রার্থী নুরুল হক তার প্রতীক তালা, মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম তার প্রতীক ভ্যান গাড়ী, মো: আরিফুল হক তার প্রতীক মোরগ, রমজান আলী তার প্রতীক ফুটবল।

সাধারণ -৪ নং ওয়াডে ( দুয়ারা, লক্ষা ) ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ৩৫ জন। প্রার্থী আসাদুজ্জামান তার প্রতীক ভ্যানগাড়ী, খোরশেদ আলম তার প্রতীক মোরগ, ছালেক তার প্রতীক তালা, হাছিবুর রহমান তার প্রতীক ফুটবল।

সাধারণ -৫ নং ওয়াডে ( বাগলা, রোহিলা) ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে । ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ৮শ ১৩ জন। প্রার্থী আঃ বাছেদ তার প্রতীক ভ্যানগাড়ী, জাকির হোসেন তার প্রতীক আপেল, মনির হোসাইন তার প্রতীক তালা, আরিফ ভুঁইয়া তার প্রতীক ফুটবল, ইব্রাহিম তার প্রতীক মোরগ।

সাধারণ -৬ নং ওয়াডে ( হাটাব,বীর হাটাব) ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ২ হাজার ৮শ ৯৩ জন। প্রার্থী আ: ছালাম আজাদ তার প্রতীক ভ্যানগাড়ী, ইব্রাহিম মিয়া তার প্রতীক পানির পাম্প, জাকির হোসেন তার প্রতীক ফুটবল, মো: শহিদুল্লাহ খান তার প্রতীক মোরগ।

সাধারণ -৭ নং ওয়াডে ( কুলিয়াদী ) ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৪ হাজার ৪শ ৭৮ জন। প্রাথী বাবুল মালুম তার প্রতীক ভ্যানগাড়ী, আয়নাল মিয়া তার প্রতীক মোরগ, এমদাদুল হক তার প্রতীক ফুটবল, মো: তোবারক তার প্রতীক তালা।

সাধারণ -৮ নং ওয়াডে ( কামতা) ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে । ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ১শ ৯৮ জন। প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক শিকদার তার প্রতীক ফুটবল, বিল্লাল হোসেন আকন্দ তার প্রতীক মোরগ।

সাধারণ -৯ নং ওয়াডে ( লক্ষা শিমুলিয়া, বিড়ল বাড়ী) ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছে। ভোটার রয়েছে ৩ হাজার ১শ ৯৮ জন। প্রার্থী আজিজুল মালুম তার প্রতীক ফুটবল, আল-আমিন তার প্রতীক মোরগ, আনোয়ার হোসেন তার প্রতীক তালা ।

ভোট গ্রহণ ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ৯ টা হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত চলবে। মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ হাজার ৫শ ৫০জন। নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে রূপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন।