শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানীর অভিযোগ

বগুড়া প্রতিনিধি:

বগুড়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। যৌন হয়রানীর শিকার ওই শিক্ষার্থী ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসে ঘটনার বিবরণ দিয়েছেন। অভিযুক্ত শিক্ষক বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল এন্ড কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ। তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছে ওই কলেজেরই এক সাবেক ছাত্রী।

যৌন হয়রানির শিকার হওয়া ওই ছাত্রী তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে যৌন হয়রানির বিস্তারিত লিখে পোস্ট দেন। ওই পোস্টে ঘটনা ধামাচাপা দেবার অনুরোধ করার অডিও রেকর্ড সংযুক্ত করেন ওই ছাত্রী।

পোস্ট দেবার মুহুর্তেই এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ওই শিক্ষক নানাভাবে ছাত্রী ও তার পরিবারকে হুমকি ধামকি দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।
ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল-

‘গত ২০ জানুয়ারি ২০২০ বিয়াম মডেল স্কুল এন্ড কলেজ, বগুড়ার বাংলা বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ আনুমানিক সন্ধ্যা ৬ টায় বিয়াম মডেল স্কুলের পার্শ্ববর্তী এলাকা তার বাড়ির সামনের রাস্তায় ফাঁকা পেয়ে আকস্মিকভাবে আমাকে তাঁর বাড়িতে ডাকে। আমি জরুরি কাজের অজুহাতে এড়িয়ে যেতে চাইলে এক পর্যায়ে আমার হাত ধরে প্রচন্ডরকম টানা হ্যাঁচড়া করে তার বাড়িতে নেওয়ার চেষ্টা করে।

ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে ফাঁক পেয়ে পালিয়ে আসি। আমি বেঁচে ফেরায় তিনি ভয় পেয়ে যান এবং আমি যাতে কারো কাছে মুখ না খুলি তাই তিনি ঘটনা পরবর্তী সময়ে আমাকে ফোন দিয়ে ক্ষমা চান এবং ব্যাপারটা ধামাচাপা দিতে বলেন।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এর আগেও প্রভাষক মাহমুদের বিরুদ্ধে এক ছাত্রী জেলা প্রশাসক বরাবরে অভিযোগ করেন। সেই ঘটনায় তার বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও অজ্ঞাত কারনে পার পেয়ে যান তিনি।

এছাড়াও জিয়া পরিষদ বগুড়া জেলা শাখার যুগ্ন-সাধারণ পদে থেকে সরকার বিরোধী কর্মকান্ডেরও অভিযোগও অনেকে তোলেন এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে।
এ বিষয়ে প্রভাষক আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বলেন, এ বিষয়ে আমি আর কিছু বলতে পারবো না।

যৌন হয়রানির বিষয় নিয়ে বিয়াম মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমি মিটিংয়ে আছি। এ বিষয়ে পরে কথা বলবো।