সাকিব আল হাসানের ফিটনেস পরীক্ষা নেওয়া হয়নি যে কারণে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক:

দীর্ঘ এক বছর পরে প্রতীক্ষার অবসান হলো। ৩৭৬ দিন পর প্রিয় মিরপুর শের-ই-বাংলায় পা রাখলেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। রিপোর্টিং সময় আজ সাড়ে ৯টায় থাকলেও সাকিব সকাল ৮টা ২০ মিনিটের দিকেই চলে আসেন।

১০ টা থেকে অন্য আরও ক্রিকেটারদের সঙ্গে তার ফিটনেস পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার ফিটনেস টেস্ট দেওয়া হয়নি।

আসন্ন ‘বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ’ উপলক্ষে ১১৩ ক্রিকেটারের ফিটনেস পরীক্ষা নিচ্ছে বিসিবি। আজ সোমবার প্রথম দিনে প্রথম গ্রুপেই ছিল সাকিবের নাম। মাঠে এসে হালকা কিছু কসরত করেছেন সাকিব। তার ফিটনেস পরীক্ষা না হওয়ার কারণ কোভিড পরীক্ষা।

যাদের সঙ্গে সাকিবের বিপ টেস্ট হওয়ার কথা, তাদের কারও কোভিড পরীক্ষা করানো হয়নি। এটা একটা ভাবনার কারণ। এছাড়াও সে দীর্ঘদিন পর ফিরেছে। ফিজিও-ট্রেনাররা তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবেন। এজন্যও একটু সময় লাগবে।

বিসিবির ট্রেনার তুষার কান্তি হাওলাদার জানিয়েছেন, আগামী বুধবার সাকিবের ফিটনেস টেস্ট হতে পারে। এই এক বছর তার মাঠে যাওয়া তো দূরের কথা, ক্রিকেটের ধারেকাছে যাওয়া নিষিদ্ধ ছিল। কোনো ধরণের ক্রিকেটই তিনি খেলতে পারতেন না। সেই সাকিব গত ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

দুরন্ত/৯নভেম্বর/পিডি