হাতিরঝিলে রাত বাড়লেই ভুতুড়ে

বিশেষ প্রতিবেদক:

রাজধানীর বিনোদনের কেন্দ্রবিন্দুতে উন্নয়নের বাস্তবায়ন করা হয় হাতিরঝিল প্রকল্প। গুলশান, রামপুরা, বাড্ডা, বনশ্রীর সঙ্গে কাওরানবাজার, মগবাজারের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করতে সংযোগ সড়কসহ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলেও রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা এড়িয়ে চলছেন চালকেরা।

আইনশৃংখলা বাহিনী বলছে, অবৈধ গাড়ি আটকসহ নিরাপত্তায় রয়েছে সর্বোচ্চ সতর্কতা। প্রায় ৯ কিলোমিটার দীর্ঘ এ হাতিরঝিলের নিরাপত্তায় প্রতি রাতে ১৩টি পোষ্টে নিরাপত্তা রক্ষী থাকেন মাত্র ২৬ জন। এক্ষেত্রে রাতের বেলা জনসাধারণ চলাচল নিয়ন্ত্রণের পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গভীর রাতে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা থাকছে না হাতিরঝিলে। প্রায়ই ওয়াক ওয়ে বা ব্রিজ, কোথাও কোথাও লাইট বন্ধ থাকায় সৃষ্টি হয় ভুতুড়ে পরিবেশ। এতে মাঝে মধ্যেই ঘটছে ছিনতাইসহ নানা অপকর্ম। কর্তৃপক্ষের অবহেলায় অনিরাপদভাবেই চলাচল করতে হচ্ছে নগরবাসীকে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলছে, নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাড়ানো হচ্ছে টহল ও চেকপোস্ট।

রাজধানীর হাতিরঝিলের অভ্যন্তরীণ প্রতিটি ব্রিজের দুপাশে রয়েছে এমন সিসি ক্যামেরা। ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তার জন্য এসব লাগানো থাকলেও মূলত কতটুকু সহায়ক তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে চলাচলকারীদের। ক্যামেরা থাকলেও নেই পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা।

রাতের হাতিরঝিল, আলো ঝলমলে থাকার কথা থাকলেও মাঝেমধ্যেই এমন আঁধারে ছেয়ে থাকে ওভারব্রিজ, ওয়াকওয়ে, ফুটপাতসহ বিভিন্ন জায়গা। আলোর জন্য পরিকল্পিত অবকাঠামো রয়েছে, কিন্তু নেই শুধু সেবা।

হাতিরঝিলের সংযোগ সড়কে তাই চলাচল করতে ভরসা যানবহনের নিজস্ব আলোই। চালকরা জানান, ছিনতাইসহ নানা আতঙ্কের কথা। অন্ধকারে হঠাৎই রাস্তা আটকে ঘটছে ছিনতাই। আর গভীর রাতে সেখানে আনাগোনা বেড়ে যায় মাদকাসক্তদের।

স্থানীয়রা বলেন, নৈশকালীন অনেকেই জীবিকার তাগিদে এখানে অবস্থান করলেও চলাফেরা অনেকটাই কষ্টকর। এছাড়া ঝুঁকি নিয়েই গন্তব্যে যেতে হয় একান্ত প্রয়োজনে বাইরে আসা নগরবাসীকে।

পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থার মাধ্যমে নিরাপদ পরিবেশ তৈরির দাবি পথচারীদের।

প্রকল্পের নিজস্ব নিরাপত্তা রক্ষীরা রাত ২টা থেকে বিদ্যুৎ চলে যাবার কথা বললেও, সময় সংবাদের টিমের রাত একটা থেকেই চোখে পড়ে অন্ধকার পরিবেশ।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও জোনের উপ-কমিশনার হারুন অর রশিদ বলেন, মাঝে মাঝে ছিনতাইয়ের মত বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। নিরাপত্তা বাড়াতে টহল পার্টি জোরদার করা হচ্ছে।

দুরন্ত/১১নভেম্বর/পিডি