হৃদয়ের হত্যার আরোও এক আসামী গ্রেফতার

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাঘায় মেহগনি ও মাদার গাছের ডাল কাটাকে কেন্দ্র করে হাতুড়ী ও লোহার রড-লাঠি দিয়ে পিটিয়ে রিদওয়ান আহম্মেদ হৃদয়(২০) নামের এক কলেজ ছাত্রকে হত্যা করার ঘটনায় আরও এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ট) সকাল সাড়ে ছয়টায় উপজেলার কালিদাস খালী চর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামী কলিগ্রাম এলাকার মৃত রকছেদ আলীর ছেলে শুকুর আলী(৪৮)। সে এজাহার ভূক্ত ১০ নং আসামী।

ঘটনার দিন থেকে সে পলাতক ছিল।নিহত রিদওয়ান হৃদয় বাঘা শাহদৌল্লাহ সরকারী কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল। গত(১ জুলাই) বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার কলিগ্রাম এলাকায় মেহগনি ও মাদারের গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে এই হত্যার ঘটনা ঘটে।

বুধবার (১ জুলাই) দিবাগত রাতে নিহতের বাবা বাদী হয়ে ১৫ জনকে আসামী করে বাঘা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় থানায় এজাহারভুক্ত নামীয় সাদেক আলী (৬৫), রুমিয়া বেগম(৫৫), তাজমিরা বেগম(২৫) ও কল্পনা খাতুন(৩২) কে পুলিশ আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে রেখা বেগম (৩৫) নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করেন। মামলার সূত্রে জানা যায়, দ্বীন-মোহাম্মদ দুখু ও তার দুই ছেলে নিহত রিদওয়ান হৃদয়,সাব্বির আহম্মেদ বাঘা উপজেলার কলিগ্রাম নিজ বাড়ির মেহগনি গাছের ডাল কাটছিল।

এ সময় বাড়ির পাশের রকসেদ আলীর ছেলে সাদেক আলী (৬৫) ওই গাছটি তার জমির উপর দাবি করে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে তর্ক- বিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে সাদেক আলী, তার ছেলে সুজন আলী, স্ত্রী রুমিয়া বেগম, ছেলে বউ তাজমিরা বেগম, কল্পনা খাতুন, ফরিদ উদ্দিনসহ আরো অনেকে দলবদ্ধভাবে হাতুরী ও লোহার রড-লাঠি দিয়ে তাদের উপর হামলা করে।

এই হামলায় দ্বীন-মোহাম্মদ দুখু, তার স্ত্রী শাহানাজ বেগম, ছেলে রিদওয়ান হৃদয়, সাব্বির আহম্মেদ, মেয়ে শারমিন খাতুন জখম ও আহত হয়। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে প্রথমে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে সেখান থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এর মধ্যে রিদওয়ান হৃদয়ের অবস্থা গুরুতর হলে তাৎক্ষনিক তাকে ঢাকার একটি হাসাপাতালে স্থানান্তর করে। হৃদয়কে মাইক্রোতে করে ঢাকা রওনা হলে পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) আঃ বারী বলেন,বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ট) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই আশরাফ আলীর সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে পদ্মা নদীর চর কালিদাস খালী (৩নং) এলাকা থেকে শুকুর আলী নামে হৃদয় হত্যার এজাহার ভূক্ত আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঘটনার দিন থেকে সে পলাতক ছিল।বৃহষ্প্রতিবার(২০ আগষ্ট )দুপুর আদালতের মাধ্যমে প্রেরণ করা হয়েছে এবং অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।