১০ বছরে ২ বস্তা ও ৪ বালতি কয়েন জমিয়ে ধরা খেলো খাইরুল!

মাগুরা প্রতিনিধি:

মাগুরার মহম্মদপুরের সবজি ব্যবসায়ী দশ বছর ধরে ৬০ হাজার টাকার কয়েন জমিয়েছেন খাইরুল ইসলাম খবির। সবজি ক্রেতা ও ভিক্ষুকদের কাছ থেকে পাওয়া ওই কয়েন জমিয়ে তা এখন ৪ বালতি ও দুই বস্তা হয়েছে। ওই কয়েনের ওজন প্রায় ছয় মণ।

এসব কয়েনের মধ্যে রয়েছে চার আনা, আট আনা, এক টাকা, দুই টাকার ধাতব মুদ্রা। কয়েনগুলো নিয়ে এখন তিনি বিপাকে পড়েছেন। এতো টাকা কোন কাজেই আসছে না খাইরুলের। আবার ওই কয়েনগুলো তার কাছ থেকে কেউ নিতেও চাচ্ছে না।

খাইরুল বলেন, গরীবদের উপকার করে আমি নিজেই এখন চরম বিপদে। ব্যবসার পুঁজি আটকে গেছে। অনেকের কাছে নিয়ে গেলেও কয়েনগুলো কেউ নিতে চায় না। কোন ব্যাংকও এত কয়েন নিবে না বলে জানতে পেরেছি। ৬০ হাজার টাকার এতগুলো কয়েন ঘরে অচল অবস্থায় পড়ে থাকায় দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছি। দুই ছেলে-মেয়ে স্ত্রীসহ চার সদস্যের পরিবার নিয়ে কষ্টে দিন কাটছে।

মহম্মদপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মোফাজ্জেল হোসেন মোল্লা বলেন, খবিরের কয়েন নিয়ে বিপাকে থাকার বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। বিভিন্ন ব্যাংকের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

এব্যাপারে মাগুরার মহাম্মদপুর সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার আবদুল মতিন বলেন, ব্যবসায়ী খাইরুল ইসলাম খবির এ নিয়ে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।